বাড়ির এই জায়গায় শঙ্খ রাখুন, যা আপনার পরিবারকে রক্ষা করবে সমস্ত বিপদের হাত থেকে…

0
23941

বর্তমান যুগে আমাদের সমাজ এতোটাই ব্যস্ত হয়ে পড়েছে যে আমাদের সময় খুবই কম। লেগেই রয়েছে মানসিক চাপ ও অশান্তি। কিন্তু আমরা সকলেই চাই সুখে শান্তিতে জীবন কাটাতে। শান্তিতে থাকার জন্য আমরা অনেক কিছুই করে থাকি। ভালো থাকার জন্য আপনিও করতে পারেন এই সামান্য কাজটি। এটি মেনে চললে আপনার জীবন সুখে ভরে উঠবে তার সঙ্গে জীবন হবে নিরাপদ।

দেবতা ও অসুরের দ্বারা সমুদ্র মন্থনের সময় যে চৌদ্দটি রত্ন উঠেছিল তার মধ্যে শঙ্খ হল অন্যতম। সেই শঙ্খ ভগবান বিষ্ণু নিজের একটি অস্ত্র রূপে ডান হস্তে গ্রহন করেছিলেন। বিষ্ণুর নির্দেশ অনুযায়ী শঙ্খ পূজার স্থলে রেখে ও মন দিয়ে তার পূজা করলে শঙ্খে স্বয়ং ব্রহ্মা অবস্থান করেন।

এছাড়াও শঙ্খে সরস্বতী অবস্থান করেন। মন্দিরের দরজা খোলার আগে এবং পুজো শুরু হওয়ার আগে শঙ্খ বাজানোর নিয়ম আছে। শঙ্খ বাজানোর প্রধান লক্ষ্য হল বাতাসে ছড়িয়ে থাকা মসজিদ এবং রাজসিক তরঙ্গকে দূরীভূত করা। তার সঙ্গে শান্তির পরিবেশ সৃষ্টি করে।

শঙ্খ হল দুই প্রকারের। একটি হল বামাবর্ত শঙ্খ অপর একটি হল দক্ষিনাবর্ত শঙ্খ। এদের মধ্যে দক্ষিনাবর্ত শঙ্খ বাদ্য রূপে ব্যবহৃত হয়। দক্ষিনাবর্ত শঙ্খ শুধু হিন্দু ধর্মেই না বৌদ্ধ ও জৈন ধর্মেও পুজা উপাচারে ব্যবহৃত হয়। দক্ষিনাবর্ত শঙ্খ বাস্তু প্রতিকারের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়।

কিন্তু বাস্তু প্রতিকারে যে যে জিনিস ব্যবহার হয়েছে সেই সেই জিনিস আর পুজোর কাজে ব্যবহার করা যাবে না। শঙ্খ ধোয়া জল আর পুনরায় পুজোর কাজে ব্যবহার করা যায় না। এছাড়াও নিত্য পুজা চলাকালীন কোনভাবে শঙ্খ স্পর্শ করা যায় না। এবার আমরা জানবো বাস্তু প্রতিকারের ক্ষেত্রে শঙ্খ কীভাবে ব্যবহৃত হয় ঃ

১। ঘরে টাকা পয়সা আসছেনা অথচ টাকা খরচ হচ্ছে জলের মতো। সেই ক্ষেত্রে একটি প্রতিকারের উপায় আছে। একটি শঙ্খে জল ভরে লাল কাপড়ের ওপর রেখে আপনার বাড়ির বা ব্যবসার জায়গায় লকারে উত্তর দিক করে ওঁ শ্রী লক্ষ্মী দেবী নমহ বলে রেখে দিন। এর ফলে মা লক্ষ্মী চিরদিনের জন্য আপনার গৃহে বসবাস করবেন।

২। আপনার গৃহে সুখ শান্তির অভাব হচ্ছে বা আপনার সন্তান ঠিকমতো পড়াশোনা করছেনা। তাহলে আপনি একটি দক্ষিনাবর্ত শঙ্খের মধ্যে জল ভরে একটি হলুদ কাপড়ের ওপর রেখে বাড়ির উত্তর পূর্ব কোণে রেখে দিন। আপনার সব সমস্যা দূর হয়ে যাবে।

৩। আপনার বাড়িতে যদি পরস্পর দূর্ঘটনা ঘটতে থাকে তাহলে আপনি একটি শঙ্খের মধ্যে লবঙ্গ ও গোলমরিচ ভরে লাল কাপড়ে মুড়িয়ে ঠাকুরের স্থানে রেখে দিন। প্রত্যেক শিব রাত্রিতে লবঙ্গ ও গোলমরিচ পালটে দিতে থাকুন, তাহলে আপনার জীবনে এবং আপনার পরিবারের কোন দূর্ঘটনা আর ঘটবে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here