প্রথম চুমু নিয়ে মুখ খুললেন শ্রীলেখা…

0
39734

শ্রীলেখা মিত্র হলেন একজন ভারতীয় বাঙালী অভিনেত্রী। জীবনে তিনি যথেষ্ট জনপ্রিয়তা লাভ করেছেন। তার জন্ম ৩০ শে আগস্ট ১৯৭১ সালে। তিনি তার অভিনয়ের জন্য অনেক পুরষ্কারও লাভ করেছেন। তিনি আনন্দলোক পুরষ্কার পান এবং বি.এফ.জে পুরষ্কারও পেয়েছিলন। তাকে অনেক সিনেমায় অভিনয় করতে দেখা গেছে। তাছাড়াও তিনি বাংলার কমেডি শো মীরাক্কেলের বিচারক হিসাবে বেশ জনপ্রিয়তা লাভ করেন।

একটি পত্রিকাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি জীবনের প্রথম পাঁচটি অভিজ্ঞতার কথা শেয়ার করেন। তাহলে দেখে নিন তিনি কি কি কথা বলেছেন…

প্রথম মিথ্যা ঃ- তখন তিনি অক্সিলিয়াম কনভেন্টে পড়তেন। একদম ছোটবেলায় বাচ্ছারা যেমন মিথ্যে বলে, ‘তোদের বাড়িতে ১০ টা টিভি, আমাদের বাড়িতে ৫০টা টিভি’ এরকমই কিছু বোকা বোকা মিথ্যে কথা তিনি বলেছিলেন। স্কুলে পৌঁছোতে দেরি হলে পানিশমেন্ট পেতে হবে জেনে কিকরে সিমপ্যাথি পেয়ে পানিশমেন্ট কাটানো যায় তার জন্য তিনি মিথ্যা অজুহাত দিতেন।

প্রথম পুরস্কার ঃ- স্কুলে কোন একটা পারফরম্যান্স করে তিনি পুরষ্কার পেয়েছিলেন। সেটাই ছিল তার প্রথম পুরষ্কার। ছোটবেলায় আর তেমন কোন পুরষ্কার তিনি পাননি। কিন্তু অভিনয় জগতে আসার পর তিনি অনেক পুরষ্কার পেয়েছেন। তাকে যে এত মানুষ চিনেছে সেটাই তার কাছে সবচেয়ে বড় পুরষ্কার।

প্রথম রোজকার ঃ- ক্লাস টুয়েলভের পর টিউশন দিয়ে তিনি প্রথম রোজকার করেছিলেন। মাসে মাত্র ৫০০ টাকা পেতেন তিনি। আর শুটিং-এ তার প্রথম রোজকার ছিল তিন দিনে ৯০০ টাকা।

প্রথম চুমু ঃ- জয়পুরিয়া কলেজে ক্লাস টুয়েলভে যখন পড়তেন তখন তিনি প্রথম প্রেমে পড়েন। তখনই প্রথম চুম্বন করেন। ক্যাডবেরি শেয়ার করতে করতে প্রথম চুমু খেয়েছিলেন তিনি। একটা গোটা ক্যাডবেরি খেতে খেতে চুমু। তার আগে তিনি জানতেন না চুমু কিকরে খেতে হয়।

প্রথম অপমান ঃ- আই.সি.এস.সি পরীক্ষার আগে প্রথম অপমান তাকে তার বাবাই করেছিলো। ডনবস্কো ফেস্টে নাচ করার জন্য ক্লাস টেন থেকে তাকে নেওয়া হয়েছিলো। তখন পরীক্ষার মাত্র এক মাস বাকি ছিল। তার বাবা সিস্টারকে বলে দিয়েছিলেন ‘মেয়ে নাচবে না’। তার জন্য তাকে মারও খেতে হয়েছিলো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here