সালমান খান তার মা-বাবা ও ভাই কে হারালেন, সংবাদমাধ্যমের সামনেই তিনি অকাদরে কেঁদে ফেললেন…

0
6102

গত বছরে বলিউড তার অনেক সেরা তারকাদের হারিয়েছে। ২০১৭ সাল বলিউড এবং সালমানের পক্ষে ভালো সময় ছিল না। যা শুধু পেশাগত দিক থেকেই নয়, সালমানের ব্যক্তিগত জীবনেও দুঃখ বহন করে এনেছে। সালমান তার কোমল হৃদয় ও যত্নশীল স্বভাবের জন্য পরিচিত। অনেককেই সালমান বলিউডে জায়গা করে দিতে সাহায্য করেছেন। তিনি বহু মানুষের কাছে একজন গডফাদার এবং বন্ধু। আজ আমরা সালমানের সেই প্রিয়জনদের একটি তালিকা এনেছি, যারা চিরবিদায় দিয়ে সালামনকে দুঃখের মুখে ফেলে চলে গেছেন।

বিনোদ খান্নাঃ বিনোদ খান্না গত বছরের ২৭শে এপ্রিল মারা যান। তার সাথে ব্যক্তিগত জীবনে সালমানের ভালো সম্পর্ক ছিল। সালমানের ‘দাবাং’ এবং ‘Wanted’ সিনেমায় বিনোদ খান্না তার বাবার ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন। সালমান খান তাকে তার লাকি মাসকট হিসাবে মানতেন। তাই তার মৃত্যুর খবর সালমানকে মর্মাহত করেছিল।

রিমা লাগুঃ ২০১৭ সালের ১৮ই মে অভিনেত্রী রিমা লাগু হৃদরোগে আক্রান্ত হন এবং শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। সালমানের প্রথম ছবি ‘মেয়েনে পেয়ার কিয়া’ তে অভিনয় করে রিমা বলিউডে তার প্রথম বড় সুযোগ পেয়েছিলেন। এই সিনেমায় সালমানের মায়ের ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন তিনি এবং বাস্তব জীবনেও তার মায়ের মতনই ছিলেন। তিনি অনেকগুলি চলচ্চিত্রে সালমানের মা হিসেবে কাজ করেছেন, যা তাদের সম্পর্কটিকে আরও শক্তিশালী করে।

ইন্দ্র কুমারঃ ইন্দ্র কুমার সালমানের সহ-অভিনেতার সাথে সাথে একজন ভালো বন্ধুও ছিলেন। ইন্দ্রর ভালো ও খারাপ সময়ে সালমান সবসময় তার সাথে থাকতেন। সালমানের সাথে বহু চলচ্চিত্রে ইন্দ্র তার ভাই ও বন্ধুর চরিত্রে অভিনয় করেছেন। ২০১৭ সালের ২৮শে জুলাই মাত্র ৪৪ বছর বয়সে ইন্দ্র হার্ট অ্যাটাকে মারা যান।

ওম পুরিঃ ওম পুরি একজন মহান অভিনেতা ছিলেন, তার এই বিশ্ব ছেড়ে চলে যাওয়াকে অনেকেই মেনে নিতে পারেননি। তিনি গত বছরের জানুয়ারি মাসে মারা যান। সালমানের সঙ্গে শেষ সিনেমা টিউব্লাইটে তিনি ছিলেন, অবশ্য শুটিং শেষ হওয়ার আগেই তিনি মারা যান।

এটি মৃত্যুর আগে ওম পুরির সাথে সালমানের শেষ দৃশ্যের ছবি। তার সাথে সালমানের বেশ ঘনিষ্ঠতা ছিল। মৃত্যুর পর টিউব্লাইটের ট্রেলার লঞ্চ হয়েছিল, তখন একটি দৃশ্যে ওম পুরিকে দেখে সালমান কেঁদে ফেলেছিলেন।

রজত বারজাতিয়াঃ রাজশ্রী প্রডাকসন্সের মালিক রজত বারজাতিয়া ২০১৭ সালে মারা গেছেন। রাজশ্রী প্রোডাকসন্সের সাথে সালমানের এক বিশেষ সম্পর্ক ছিল এবং এই প্রোডাকসন্সের সব চলচ্চিত্রেই সালমান অংশ নিয়েছিলেন।

রজতের সাথে সালমান অনেক কাজ করেছিলেন। রজত এবং সালমানের বন্ধুত্ব বলিউড ইন্ডাস্ট্রির সকলেই জানতো। তার অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া চলাকালিন সালমান নিজের অনুভুতি সামলাতে না পেরে সংবাদমাধ্যমের সামনেই কেঁদে ফেলেন।

আব্বাস রিজভিঃ বলিউডের একজন মহান প্রযোজক আব্বাস রিজভী গত বছর মারা যান। তিনি সালমানের ঘনিষ্ঠ বন্ধুদের মধ্যে একজন ছিলেন। ইস্তাম্বুলের সন্ত্রাসী হামলায় তিনি মারা যান, যা সালমানকে বিস্মিত করে দিয়েছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here