ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তর মেয়ে কত সুন্দরী একবার দেখলে অবাক হয়ে যাবেন, শীঘ্রই আসছে টলিউডে ?

0
7220

বাংলা চলচ্চিত্র জগতে যতই নামি দামি অভিনেত্রী আসুক না কেন, ঋতুপর্ণার স্থান চিরকালীন। ১৯৯৫ সালে তিনি এসেছেন এই ইন্ডাস্ট্রিতে। তারপর থেকে বিভিন্ন ধরনের বানিজ্যিক ছবিতে তাকে যেমন দেখা গেছে, তেমন নিজের অভিনয় পারদর্শিতার প্রমাণ দিয়েছেন তিনি বারবার। তার প্রথম ছবির নাম হল শ্বেত পাথরের থালা। তিনি তখন আধুনিক ইতিহাসে স্পেশালাইজেশনসহ এমএ প্রথম বর্ষের ছাত্রী।

ছবিটি ছিল বেশ অন্য ধরনের যা সে সময় মানুষের মধ্যে সাড়া ফেলে দেয়। প্রথম ছবিতেই ঋতু তার বলিষ্ঠ অভিনয়ের ছাপ রাখেন। যা দর্শক ও অভিনয় জগতের কলা কুশলী থেকে শুরু করে পরিচালকদেরও নজর কাড়ে। তারপর থেকেই তার যাত্রাপথ ঊর্ধ্বগামী।

বাংলা চলচ্চিত্র জগতের সমস্ত নামী দামি অভিনেতাদের পাশে তাকে সমান গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে দেখা গেছে। সহ অভিনেতাদের মধ্যে প্রসেনজিতের সাথে তার পর্দার সামনের ও পিছনের রসায়ন বহুল চর্চিত একটি বিষয়। এই জুটি আজও যখন একসাথে পর্দায় আসে, বাংলার আপামর জনতা তা উপভোগ করে।

ইন্ডাস্ট্রির সমস্ত কানাঘুষোকে উড়িয়ে ১৯৯৯ সালের ১৩ ই ডিসেম্বর তিনি সঞ্জয় চক্রবর্তীর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। সঞ্জয় মোটেই এই চলচ্চিত্র জগতের মানুষ ছিলেন না। সঞ্জয় মবিঅ্যাপস নামে কলকাতার একটি সিইও-এর প্রতিষ্ঠাতা।

নায়িকা অভিনয়ের পাশাপাশি সংসার সামলান দারুন ভাবে। তিনি দুই সন্তানের মাও বটে। ছেলে অঙ্কন ও মেয়ে ঋষনা নিয়া। ঋতু কন্যা মিষ্টি মুখ খুবই আকর্ষণীয়। তার বয়স মাত্র ৭ বছর। মা অভিনয় জগতে আছেন বলে কন্যার এই জগতের প্রতি টান বেশ স্বাভাবিক।

এই বয়স থেকে ছোট্ট ঋষনা নাচ গান ইত্যাদিতে যথেষ্ট পারদর্শী। এমনকি অভিনয় ক্ষমতাও তার প্রশংসনীয়। অনেক নাটকে তাকে অভিনয় করতে দেখা যাচ্ছে। মায়ের সাথে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে ঋষনাকে দেখা যায়।

অভিনেত্রী এখনও তার অভিনয় জগতের সাথে অঙ্গাঙ্গী ভাবে জড়িত। সারা বছরই তার হাতে থাকে ছবির কাজ। এর মধ্যেও তিনি সময় কাটান তার ছোট্ট মেয়ের সাথে। সব মায়ের মত তিনিও স্নেহময়ী।

অভিনয় পরিবারের মধ্যে থাকলে এই পেশাকে বেছে নেবার প্রবণতা থাকে প্রায়ই। তাই আমরা কি ঋষনাকে অদূর ভবিষ্যতে রূপোলী পর্দায় দেখতে পাবো? সময়ের সাথে কন্যা কি মায়ের মত সুন্দরী হয়ে উঠবে? অভিনয় দক্ষতাই বা কেমন হবে তার? দেখা যাক কি হয়। সে উত্তর দেবে সময়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here