ছেলে-মেয়ে পালিয়ে বিয়ে করলে মা-বাবা কে গ্রেপ্তার করবে পুলিশ, রায় দিলো সুপ্রিম কোর্ট…

1
21595

প্রেম হল ভালোবাসা পূর্ন মানসিক এবং শারীরিক চাহিদার এক মিশ্র অনুভূতি। এটি কোন মানুষের প্রতি আকর্ষনের বহিঃপ্রকাশ। প্রেমের অনুভূতি প্রবল। কোন ছেলে বা মেয়ে যখন প্রেমে পড়ে দিবারাত্র তখন তার কথাই ভাবতে থাকে। তখন তার ইচ্ছা করে সব সময় তার সাথে কথা বলতে, পরস্পর পরস্পরের কাছাকাছি থাকতে। তাই প্রেম করার কিছুদিন বাদে তারা সিদ্ধান্ত নেয় বিয়ে করার।

সম্পর্কে অনুভূতি যত বাড়তে থাকে তার সঙ্গে বাড়তে থাকে অনিশ্চয়তা ও দুশ্চিন্তা। পরিবারের চাপে যদি ভালোবাসা চিরদিনের মতো হারিয়ে যায়? যদি তার জীবনে ভালোবাসা ফিরে না আসে? এই ভয় সব সময় তাড়া করতে থাকে প্রেমিক হৃদয়কে।

আমরা সাহিত্য, উপন্যাস, কবিতা- আবৃত্তিতে প্রেমের ব্যবহার দেখেছি। বাংলা সাহিত্য তো বটেই, তা ছাড়াও উইলিয়াম শেক্সপিয়ারের মতো বিখ্যাত রচয়িতার সাহিত্যকর্মেও প্রেমের উল্লেখ আছে। আমাদের দেশে প্রেমের সিনেমা দেখতে বা প্রেমের উপন্যাস পড়তে সবাই ভালোবাসলেও নিজের সন্তান যদি প্রেম করে বিয়ে করে তাহলে তা কখনোই মেনে নিতে পারেনা অভিভাবকরা।

প্রেম করা কোন অপরাধ নয়। আদিকাল থেকেই প্রেমের নজির গড়েছে অনেকেই। প্রেমের প্রথম উদাহরন হল রাধা-কৃষ্ণ। বর্তমান যুগের সাথে পাল্লা দিয়ে চলছে প্রেমের হার। বয়স্ক মানুষেরা এখন বলে আগে শুধু তারা সিনেমেতে নায়ক নায়িকাদের প্রেম করতেই দেখতেন। বর্তমানে কিন্তু তা একদম নয়।

এখন বেশীরভাগ মানুষ চায় প্রেম করে বিয়ে করতে। বিয়ের আগে নিজের জীবনসঙ্গীকে একটু চিনে নিয়ে জেনে নিয়ে তারপর বিয়ে করতে। আর পরিবারের লোক চায় তাদের পছন্দ মতো তাদের সন্তান বিয়ে করুক।

এমন অনেক পরিস্থিতি আসে যেখানে সন্তানের কোন প্রেমের সম্পর্ক আছে আর তার পরিবার চায় তাদের পছন্দে বিয়ে হোক। এরকম সময়ে সেই প্রেমিক যুগল সিদ্ধান্ত নেয় বাড়ি থেকে পালিয়ে বিয়ে করার। তখন তারা পরে তাদের পরিবারের রোষের কবলে।

পালিয়ে বিয়ে করার পরেও তাদের বিভিন্ন সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়। তাই এই ধরনের সমস্যায় সমাধান করতে এক সিদ্ধান্ত নিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। যেসব অভিভাবকরা সন্তানের উপর বিয়ের পরেও চাপ সৃষ্টি করবে তাদের বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ করা যেতে পারে।

যে যে কারনে অভিযোগ করা যেতে পারে সেগুলি হল… ১। মানসিক অত্যাচার, ২। স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ, ৩। ভয় দেখানো ইত্যাদি। এরকম ১৫ টি দন্ডবিধির হাত ধরে পুলিশ ছেলে মেয়ের অভিভাবকদের কাঠগড়ায় তুলতেই পারে।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here