মন্দিরটি কখনও বৃষ্টিতে ভেজেনা, দেখুন এক আজব কাণ্ড…

0
1546

১২০০ বছরের পুরনো এই মন্দিরে বৃষ্টি পরলে সেই বৃষ্টির একফোঁটা জলও মন্দিরের গায়ে লাগেনা। আশ্চর্য এমন কাণ্ড সত্যিই ঘটে। আজ আমরা আপনাদের এমনই একটি মন্দিরের কথা বলবো। শুনতে হয়তো আপনাদের অবাক লাগবে কিন্তু এমনটাই হয়ে আসছে বহু বছর ধরে।

হ্যাঁ, এই অসম্ভব কাজটি সম্ভব হয়েছে শুধুমাত্র ঠাকুরের কৃপায়। অনেকেরই এই মন্দির দেখার সৌভাগ্য হয়নি। যারা যারা এই মন্দির দেখেননি তারা আমাদের এই ছবিগুলি দেখে পুণ্য অর্জন করুন। এই মন্দিরের ভগবান খুবই জাগ্রত। সকলের মনের আশা পূরন করে ঠাকুর।

মন্দিরটি ভারতের মহারাষ্ট্র রাজ্যের ঔরঙ্গবাদ শহরে অবস্থিত। এই মন্দিরটির কথা অনেকেরই জানা। কেউ অন্য লোকের মুখে শুনে জেনেছেন আবার কেউ ইন্টারনেটের মাধ্যমে জেনেছেন। আবার অনেকেই এই বিষয়ে কিছুই জানেননা। যারা এই ব্যাপারে কিছু জানেননা তাদের জন্যই আজ এই আলোচনা।

এটি একটি প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন হিসাবেই আমরা জানি। ইতিহাসেও এর কথা লেখা আছে। কথিত আছে পাল বংশের কোন এক রাজা এর প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। মন্দিরটিতে বহু গুহা আছে যা অনেক রহস্যময়। এই কারনে এখন সরকারের পক্ষ থেকে মন্দিরটিকে সংরক্ষন করা হচ্ছে। এই মন্দিরটি পৃথিবীর ঐতিহাসিক নিদর্শনগুলির মধ্যে একটি।

এই মন্দির নিয়ে অনেক কথাই শোনা যায় লোকমুখে। এমনটা শোনা যায় যে বৃষ্টি হলে নাকি মন্দিরের গা ভেজেনা। মন্দিরটি পাথরের তৈরি। বৃষ্টিতে মন্দিরটি একদম শুকনো থাকে। যে প্রথমবার এই ঘটনা দেখবে সেই অবাক হবে।

আবার অনেকে বলেন এই মন্দির নাকি ভীনগ্রহের প্রানীদের তৈরি। এই কথা আদপে সত্যি কিনা মিথ্যে তা কেউ জানেনা। এই মন্দিরের নাম কৈলাশ মন্দির। শিব মন্দিরের প্রতিষ্ঠাকাল থেকেই সেখানে অবস্থান করছেন। পড়ে সেখানে স্থান পান মা ভবতারিণী।

এই মন্দিরটিকে অনেকটা কৈলাশ পর্বতের মতো দেখতে। তাই এর নাম কৈলাশ মন্দির। মন্দিরটি আনুমানিক ৬৫০-৭৮৩ খ্রিস্ট পুর্বাব্দে প্রতিষ্ঠিত। এই মন্দিরটি একদিনে তৈরি হয়নি। বহু বছর ধরে একটু একটু করে এই মন্দির গড়ে উঠেছে। কথিত আছে একটানা ২০ বছরের পরিশ্রমের ফলে এই মন্দির গড়ে উঠেছে।

এই মন্দিরটি পুরোটাই পাথর কেটে তৈরি করা হয়েছে। পাহাড়ের একটি গোটা অংশকে কেটে এটি নির্মাণ করা হয়েছিল। মোট প্রায় ৭০০ টন কেটে বাদ দেওয়া হয়েছিল। ২০ বছর ধরে চলেছিল মন্দিরটির নির্মান কাজ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here