মাসের পর মাস সমুদ্রে থাকা নৌসেনা অফিসারের স্ত্রী-দের জীবন কেমন হয় জানেন ?…

0
22229

জলপথে শত্রুদের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করার জন্য নৌসেনারা নিজেদের ঘর বাড়ি পরিবার ছেড়ে থাকেন দিনের পর দিন মাসের পর মাস। কিছু বিশেষ দায়িত্ব থাকে নৌসেনাদের উপর। তারা পেশার তাগিদে এবং দেশের জন্য জাহাজেই কাটিয়ে দেয় জীবনের অর্ধেক সময়। মৃত্যু যেন সবসময় তাদের তাড়া করে বেড়ায়। যখন তখন তাদের মৃত্যু হতে পারে।

তাদের পরিবার আছে, স্ত্রী আছে সন্তানও আছে। তারা সকলকে ছেড়ে থাকেন। তারা কীভাবে কাটান তাদের জীবন? আর কীভাবেই বা কাটে তাদের স্ত্রীদের জীবন? নৌ অফিসারেরা প্রতিটি র‍্যাঙ্কে দুই থেকে তিন বছরের জন্য থাকেন। দুই থেকে তিন মাসের জন্য তারা সমুদ্রে জাহাজের মধ্যে থাকেন। সেই সময় পরিবারের কারোর সঙ্গে তাদের কোন যোগাযোগ থাকেনা।

এই দুনিয়া থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যান তারা এই সময়। তাদের সমুদ্রে থাকার সময় বাড়তেও পারে পরিস্থিতি অনুযায়ী। এইসব নৌসেনাদের স্ত্রীদের জীবন খুব কস্টকর হলেও তারা কস্ট দূর করার জন্য নিজেদের বিভিন্ন রকম কাজে ব্যাস্ত রাখেন। পরিস্থিতির সঙ্গে নিজেদের মানিয়ে নিতে শিখে যান তারা।

এরা নিজেদের মতো করে আনন্দে থাকতে শিখে যান। তারা নিজেদের দুঃখ ভুলে যান। কিন্তু যারা নৌসেনাদের স্ত্রী হন তারা ভারতের সবথেকে সুন্দর কিছু শহরে থাকার সুযোগ পেতে পারেন। এগুলির মধ্যে রয়েছে মুম্বাই, দিল্লী, ভাইজ্যাক, চেন্নাই এবং কোচি।

অবশ্য তাদের মনে একটা ভয় থেকেই যায়। তাদের স্বামীর প্রানের ভয়। জলপথে দেশের উপর শত্রু আক্রমন করলে তাদের প্রাণ যেতে পারে যখন তখন। এই ভয় তাদের সারাক্ষন তারা করে বেড়ায়। তবুও তারা নিরুপায় হয়ে সব ভুলে নিজের মতো জীবন তৈরি করে নেন।

এছাড়াও এইসব নৌসেনাদের তিন থেকে পাঁচ বছর অন্তর ট্র্যান্সফার হয়ে যায় অন্য কোন শহরে। এই সময় নতুন শহরে থাকার ব্যবস্থা যত না হয় তাদের বন্ধু সহকর্মীর বাড়িতে থাকতে হয়। ভারতীয় নৌসেনা সারা পৃথিবীর শক্তির মধ্যে সপ্তম স্থানে আছেন।

তারা দেশের উপকূল সমুদ্রের রণকৌশল সাজানো সহ দেশকে নানা ভাবে সুরক্ষিত রাখার কাজ করেন। এছাড়াও প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের সময় তারা ঝাপিয়ে পড়ে দেশবাসিকে রক্ষা করার জন্য। নিজেদের প্রাণের পরোয়া না করে তারা বাঁচায় দেশের সাধারন মানুষকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here