আপনার মানি ব্যাগে রাখুন এই জিনিস… থাকবেনা কোন অর্থের অভাব…

0
32558

বর্তমান যুগে সবচেয়ে দরকারি জিনিস হল টাকা, টাকা ছাড়া জীবনের এক মুহূর্তও বেঁচে থাকা সম্ভব নয়। আগেকার দিনে এই টাকা রাখার জন্য মানুষ পার্স বা মানিব্যাগ ব্যবহার করতো না। তারা হয়তো শাড়ির আঁচলে নয়তো ধুতির খুঁটে টাকা বেঁধে রাখতো। কিন্তু এখনকার যুগে পুরুষ মহিলা নির্বিশেষে সকলেই পার্স বা মানিব্যাগ ব্যবহার করেন।

এই মানিব্যাগ বা পার্সের ওপর অর্থের ভাগ্য নির্ধারিত হয়। অনেক মানুষ আছে যারা খুব কাজ করে কিন্তু তার ফল ঠিক মতো পায়না। আবার অনেকে উপার্জন তো করে কিন্তু টাকা রাখতে পারেনা। অনেক খরচা করে ফেলে, ফলে টাকার অভাব তাদের চিরদিন থেকে যায়।

আজ আপনাদের এমন কিছু জিনিসের কথা বলবো যা মানিব্যাগে রাখলে আপনাদের অর্থভাগ্য ফিরে যাবে। প্রাচীন শাস্ত্র মতে এমন কিছু টোটকা আছে যা মেনে চললে আপনার থাকবে না কোন অর্থের অভাব। তাহলে জেনে নেওয়া যাক জিনিসগুলি কি…

১। চাল ঃ আমরা জানি চাল হল লক্ষ্মী। তাই টাকার অভাব দূর করার জন্য আপনি আপনার মানিব্যাগে কয়েকটি চাল একটি কাগজে মুড়ে রাখতে পারেন। এর দৌলতে আপনি হয়ে যেতে পারেন অনেক অর্থের মালিক। এর ফলে আপনার কাছে যেমন টাকা আসবে তেমন টাকার খরচাও কম হবে।

২। গুরুজনের আশির্বাদ ঃ আপনার বাবা-মা বা কোন গুরুজনের দেওয়া আশির্বাদী টাকা আপনি হলুদ ও জাফরান মিশিয়ে আপনার মানি ব্যাগে রাখতে পারেন। সেই আশির্বাদ আপনার আর্থিক উন্নতি করবে তেমনই আপনাকে অজানা বিপদ থেকে রক্ষা করবে।

৩। ধনলক্ষ্মী দেবীর ছবি ঃ হিন্দু শাস্ত্র মতে লক্ষ্মী হলেন ধন সম্পদের দেবী। আমরা বাড়িতে লক্ষ্মী দেবীর পূজো করি সংসারের মঙ্গলের জন্য, আর্থিক অভাব যাতে না থাকে সেই জন্য। তাই মানি ব্যাগেও যদি দেবীর ছবি রাখা যায় তাহলে আপনার আর্থিক কষ্ট দূর হবে, সঙ্গে অর্থের আগমন ঘটবে আপনার কাছে।

৪। অশ্বত্থ পাতা ঃ পুরাণ মতে অশ্বত্থ পাতা হল একধরনের শুভ প্রতীক। আপনি একটি অশ্বত্থ পাতা নিয়ে জলে ধুয়ে মুছে পরিষ্কার করে আপনার মানিব্যাগে রেখে দিতে পারেন। ঐ পাতাটি শুকিয়ে গেলে আপনি আবার একটি নতুন পাতা তুলে একই ভাবে রেখে দিন। এইভাবে কিছুদিন করতে থাকলে আপনার কোন অর্থের অভাব থাকবেনা, সঙ্গে অর্থ আপনার কাছে নিজেই আসবে।

৫। মনস্কামনা ঃ আপনার যদি কোন মনের ইচ্ছা থাকে তাহলে আপনি তা একটি সাদা কাগজে লিখে একটি লাল খামে মুড়ে আপনার মানি পার্সে রাখতে পারেন। এতে আপনার মনের কামনা পুর্ন হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here