রবিবার ভুল করেও তুলসী গাছে প্রদীপ দেখাবেন না, নেমে আসবে ঘোর বিপদ…

0
5693

তুলসী গাছ এমন একটি গাছ যা প্রত্যেকটি বাঙালী বাড়িতে দেখতে পাওয়া যায়। হিন্দুরা তুলসী গাছকে দেবতা রূপে পুজো করে। প্রত্যেকটি বাঙালী বাড়িতে তুলসী মঞ্চ অবশ্যই থাকে, আর সেই মঞ্চে তুলসী গাছ থাকে। তুলসী গাছকে যেমন পুজো করা হয় তেমন তুলসী পাতাও পুজোর কাজে লাগে। তাছাড়াও তুলসী পাতা আয়ুর্বেদিক ঔষধ হিসাবে কাজ করে। এটি প্রধানত সর্দি ও কাশির মহৌষধি।

তুলসী গাছে প্রতিদিন সন্ধ্যাবেলা ধূপ – বাতি দেখিয়ে পুজো করা একটি প্রাচীন হিন্দু রীতি। হিন্দুদের কাছে তুলসী খুব উপকারী। সেটা শাস্ত্রীয় দিক থেকেই হোক বা আয়ুর্বেদিক দিক থেকে।

আগেকার দিনে যখন ডাক্তার ছিলনা তখন মানুষ এইসব ছোট খাটো টোটকা ব্যবহার করত। এখনও ব্যবহার করা হয়, তবে এখন এতটাও প্রচলন নেই।

বাড়িতে তুলসী গাছ সবাই রাখেন কিন্তু তুলসী গাছ থাকলে তার নিয়ম অনেকেই জানেন না। এমন কিছু কাজ আছে যা তুলসী গাছ থাকলে করতে নেই। আসুন তাহলে দেখে নি সেগুলি কি কি ঃ

১। রবিবার তুলসী গাছের পাতা ছিঁড়তে নেই, একথা অনেকেই জানেন না। বিষ্ণু পুরাণ অনুযায়ী একাদশী, দ্বাদশী, সূর্যগ্রহন ও চন্দ্রগ্রহনের সময় তুলসী গাছের পাতা ছিঁড়তে নেই। কারণ মনে করা হয় মা তুলসী একাদশীর ব্রত পালন করেন রবিবার। সুতরাং সেদিন তাকে বিরক্ত করা একদম উচিৎ নয়। তাই সেদিন গাছের পাতা ছিঁড়লে তুলসী রুষ্ট হন। এই কাজ করে ফেললে জীবনে চরম খারাপ সময় নেমে আসে।

২। রবিবার ভুল করেও তুলসী মঞ্চে প্রদীপ দেখাবেন না। রবিবার তুলসী পাতা ছেঁড়ার সঙ্গে তুলসী মঞ্চে প্রদীপ দেখানোও বারণ। কারণ রবিবার হল ভগবান বিষ্ণুর বার। সেদিন প্রদীপ দেখালে শুধু বিষ্ণুদেবকেই দেখাতে হবে। নাহলে মা লক্ষ্মী অপমানিত হন। সেদিন বিষ্ণু ছাড়া অন্য কাউকে প্রদীপ দেখালে মা লক্ষ্মী তার উপর রুষ্ট হন এবং ক্রুদ্ধ হয়ে সেই বাড়ি থেকে বিদায় নেন। তাই অবশ্যই মনে রাখবেন এই কথাটা।

৩। আরও একটি গুরুত্বপুর্ন কথা আপনাদের জানাবো। স্নান না করে কখনোই তুলসী গাছকে স্পর্শ করা উচিৎ নয়। বলা হয় এতে তুলসী বাসি হয়ে যায়। তুলসী পাতা ১১দিন পর্যন্ত জল ছিটিয়ে ভগবানের উদ্দেশ্যে নিবেদন করা যেতে পারে। ১১ দিন পর তা বাসি হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here