এইবার থেকে মেয়েরাও পারবে দাঁড়িয়ে মূত্রত্যাগ করতে, এই পদ্ধতিতে…

0
29139

রাস্তা ঘাটে নোংরা শৌচাগারে মহিলারা প্রস্রাব করতে দ্বিধা বোধ করেন। এর কারন হল মহিলাদের প্রস্রাব করতে হলে তাদের টয়লেট সিটে বসতে হয়। আর আমাদের দেশের পাবলিক টয়লেট গুলোর যা অবস্থা তাতে মহিলাদের টয়লেট করা খুব মুশকিল ব্যাপার। অপরিষ্কার করে রাখা হয় টয়লেট গুলো। সেখনে টয়লেট করলে মহিলাদের অসুস্থ হওয়া অবধারিত।

রাস্তা ঘাটে মহিলাদের হঠাত প্রস্রাব পেলে তাদের কিছু করার থাকেনা। বাধ্য হয়ে ব্যবহার করতে হয় পাবলিক টয়লেট। আর এই কারনেই বেশিরভাগ মেয়ে ইউরিনারি ও মূত্রনালীর সমস্যায় ভোগে। তাই মহিলাদের কথা ভেবেই আন্তর্জাতিক টয়লেট দিবসে ভারতে লঞ্চ করা হয়েছে একটি প্রোডাক্ট।

যেটি তৈরি করেছেন দেশের সেরা ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ দিল্লী আই.আই.টির দুজন ছাত্র। তাদের নাম অর্চিত আগরওয়াল ও হ্যারি শেহরাওয়াত। তারা একটি পদ্ধতি ব্যবহার করেছেন মহিলাদের সাহায্যের জন্য। তারা টয়লেট করার জন্য একটি জিনিস বানিয়েছেন।

দেশের সেরা চিকিৎসা গবেষণা প্রতিষ্ঠান এইমস ও এটিকে পরীক্ষা করে সম্পূর্ন স্বাস্থ্যসম্মত ও নিরাপদ বলে রায় দিয়েছেন। প্রোডাক্টটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘সানফে’। এর মানে হল স্যানিটেশন ফর ফিমেল। ভারতে এর দাম এক টাকারও কম।

সানফে যারা তৈরি করেছেন তাদের বক্তব্য হল যে শৌচাগারে কোন অঙ্গ স্পর্শ না করে মহিলারা যাতে মূত্রত্যাগ করতে পারে তার জন্য এই প্রোডাক্টটি বানানো হয়েছে। যাতে তারা দাঁড়িয়েই মূত্রত্যাগ করতে পারে। তাদের যখনই শৌচাগারে যাওয়ার দরকার পড়বে তখনই তারা জিনিসটি খুলে দাঁড়িয়ে থাকা অবস্থাতেই ফ্লো এরিয়ায় বসিয়ে নিতে পারবে।

তারপর প্রস্রাব করা হয়ে গেলেই তা ফেলে দিতে হবে। তার ফলে টয়লেটের কোন অংশে তাদের স্পর্শ করার দরকার নেই। এর প্রোডাক্টিং ডিসাইনার বলেন এটি তৈরি হয়েছে সম্পুর্ন প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে। এই জিনিসটি জনপ্রিয় করে তোলার জন্য নানা এনজিও-র সাহাজ্যে বহু মহিলাদের বিনা পয়সায় বিলি করা হচ্ছে।

যাতে তারা এর সুবিধা বুঝতে পারে। এই প্রোডাক্ট লঞ্চ করার আগে বিভিন্ন বয়সের মহিলাদের উপর এটির ট্রায়াল চালানো হয়েছে। তাদের এই জিনিসটি ব্যবহার করে বেশ তৃপ্তিদায়ক বলে মনে হয়েছে। এর নির্মাতাদেরও এরকম আশা ছিল। যে সব মহিলাদের রাস্তা ঘাটে বেশি সফর করতে হয় তাদের জন্য এটি খুব প্রয়োজনীয় জিনিস।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here