৮ টি ভয়ঙ্কর সাপ, যাদের নিজেদের খাবার খাওয়ার ফলেই মৃত্যু ঘটেছে…

0
5849

সাপ সম্ভবত সরীসৃপদের মধ্যে সবচেয়ে ভয়ঙ্কর জন্তু। কুমির তালিকার শীর্ষে থাকলেও আপনার টয়লেটের সিট বা ঘর থেকে হঠাৎ কুমির বেড়িয়ে আসার সম্ভাবনা শূন্য। অন্যদিকে, সাপ সমস্ত আকারের হয় এবং যেকোনো মুহূর্তে যেকোনো জায়গায় দেখা যেতে পারে। সাপেরা সাধারন কিছু নির্দিষ্ট খাবারের শিকার করে। কিন্তু যখন তারা ভুল শিকার বেছে নেয় তখন ব্যাপারটা উলটে যায়, শিকারের বদলে তারা নিজেরাই মারা যায়। আজ আমরা এমনই কিছু ঘটনা নিয়ে বলতে চলেছি।

কুমিরঃ ২০০৫ সালে ফ্লোরিডায় একটি পাইথন সম্পূর্ণরূপে একটি কুমিরকে খেতে চেষ্টা করে এবং সম্ভবত কুমির খাওয়ার ফলে সাপের শরীর বিচ্ছিন্নকরণ ঘটে। ছবিতে আপনি যা দেখছেন, সাপের দেহের মাঝখান থেকে বাইরের দিকে ঠেলে বেড়িয়ে আসছে কুমিরের দেহটি।

ভেড়াঃ মালেশিয়ার একটি গ্রামে এই পাইথনটি একটি গর্ভবতী ভেড়াকে পুরো গিলে ফেলে। সাপটি ভেবেছিল যে এটি হয়তো তার একদিনের খাবার হয়ে যাবে। অত্যধিক খাবার খাওয়ার ফলে সাপটি একটুও নরতে পারেনি এবং অবশেষে সাপটি মারা যায়।

সাপঃ অস্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলসে একটি সাপ আরেকটি সাপকে খেতে চেষ্টা করে। কালো সাপটি বাদামী সাপের পেটের ভিতরে গর্ত করে বেড়িয়ে আসে। বাদামী সাপটির মৃত্যু ঘটে।

শজারুঃ দক্ষিণ আফ্রিকায় ২০১৪ সালে একটি আফ্রিকান রক পাইথন মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। কারণ এটি একটি ৩০ পাউণ্ডের শজারুকে খেয়ে ফেলেছিল যা সাপটিকে পুরো মাঝখান দিয়ে ফাটিয়ে ধ্বংস করে দিয়েছিলো।

বিছেঃ এই ভাইপার সাপটি তার সমান আকারের বিছেটিকে খেতে চেষ্টা করে। ফলে তার শরীর কেটে যায় এবং অভ্যন্তরীণ অঙ্গ মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। একটি নির্মম ঘটনা যেখানে শিকারী নিজেই শিকার হয়ে ওঠে।

বৈদ্যুতিক কম্বলঃ এই হুডিনি নামের পোষা পাইথনটি তার খাঁচায় রাখা কম্বলটি খেয়ে ফেলে যা তাকে গরম রাখত। সৌভাগ্যক্রমে সাপটি সময় মতো চিকিৎসা পেয়ে বেঁচে যায়।

শজারুঃ একটা অজগর একটি শজারুকে গিলে ফেলে, সঙ্গে সঙ্গে পেটের মধ্যে তার কাঁটা ফুটে যায়, কাটাগুলি সাপের চামড়ার বাইরে বেড়িয়ে আসে। যদিও সাপটির মৃত্যু হয়েছিল নাকি তার কোন খবর পাওয়া যায়নি।

শূকরঃ অস্ট্রেলিয়া কুইন্সল্যান্ডে পাইথনটি সম্পূর্ণরূপে একটি শূকর খেয়ে নেয় এবং হজম না করতে পারার ফলে জীবন হারিয়ে ফেলে। শূকরের বৃহৎ আকারের ফলে সাপের কিছু অভ্যন্তরীণ অঙ্গ ছিঁড়ে যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here