১২৪ টাকায় মেলে ১ দিনের জন্য নারীদেহ আপনার এই শহরে…

0
23766

দেহ ব্যবসা সারা বিশ্বের প্রচীনতম পেশাগুলির মধ্যে অন্যতম। এই ব্যবসা যে শুধু মেয়েরা করে তা নয়। নারী পুরুষ সকলেই নাম লেখায় এই পেশায়। কোন কোন পুরুষ মেয়েদের কাজে লাগিয়ে ব্যবসা থেকে পাওয়া মোটা টাকা লাভ করে। আবার পুরুষেরা নিজেরাও দেহ ব্যবসায় লিপ্ত হয়। তারা কোন মহিলার যৌ-ন ইচ্ছা পরিতৃপ্ত করার জন্য এই কাজ করে এবং তার জন্য টাকা নেয়।

প্রাচীনকাল থেকেই দেহ ব্যবসার রমরমা বাজার সারা পৃথিবী জুড়ে। অষ্টাদশ শতকের শেষে এবং ঊনবিংশ শতকের শুরুতে ভারতের ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানীর আমলে ব্রিটিশরা অল্প বয়সি কিছু মেয়েকে ধরে এনে তাদের কামনা চরিতার্থ করতো।

তারা এই কাজের জন্য একটি স্থান তৈরি করেছিল যা তারা বে’শ্যালয় হিসাবে ব্যবহার হত। কিন্তু এত সময় অতিবাহিত হয়ে যাওয়ার পরেও এক শ্রেনির মেয়েরা এখনো উপেক্ষিত। তাদের পেশার নাম হল – দেহ ব্যবসা। এই কথা শুনলে সভ্য শ্রেনির মানুষেরা কানে আঙ্গুল দেয়।

তাই যৌ-ন পল্লীর আর এক নাম হল নিষিদ্ধপল্লী। যে সব পুরুষের নিত্য নতুন নারী শরীর চাই, তাদের জন্যই এই ব্যবসা চলছে বেশ ভালোভাবেই। কিছু মেয়ে অভাবের তাড়নায় খেতে না পেয়ে, আবার অনেক মেয়ে কোন প্ররোচনার ফাঁদে পা দিয়ে এই পেশার সঙ্গে যুক্ত হয়ে পড়ে।

কিছু গরীব কলেজ পড়ুয়া মেয়ে, গৃহবধূ নিজেদের প্রয়োজন মেটাতে এই কাজে নামে। গোটা বিশ্ব জুড়ে কমবেশি সব জায়গাতেই দেহ ব্যবসা হয়ে থাকে। এশিয়ার মধ্যে সর্ববৃহৎ যৌ-ন পল্লী আছে আছে আমাদের ভারতেই। আর সেটা হল কোলকাতার বুকে।

সবাই হয়তো তার নাম শুনেই থাকবেন। তার নাম হল ‘সোনা-গাছি’। এই এলাকায় প্রায় ১৪ হাজার পতিতা বাস করে। যারা প্রতিদিন নিজেদের পেট চালানোর জন্য তাদের শরীর বেচে। এই শহরের এই জায়গাটি আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন।

এই জায়গায় দেহ ব্যবসা সম্পূর্ন বৈধ। এশিয়ার সব থেকে বড় যৌ-ন পল্লি হওয়া সত্ত্বেও এখানকার কর্মীদের রোজগার খুব বেশি নয়। তাদের জীবন খুবই কষ্টের। সেখানে সর্বনিম্ন ১২৪ টাকায় মেয়েদের নিজের শরীর বিক্রি করতে হয়।

১২৪ টাকা খুব কম টাকা। ঐ টাকা কোন কাজেই লাগেনা। নিজেদের পেট চালানোর জন্য ১২৪ টাকা কিছুই নয়। তাদের জন্য সরকারের কোন সাহজ্য নেই। কিছু স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন অল্প কিছু সাহায্য করে, তবুও তা তাদের জন্য যথেষ্ট নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here