বদহজম, গ্যাস, পেট ফোলা, এসিডিটি হবার প্রধান কারণ ও তা থেকে মুক্তি পাবার সহজ উপায়…

0
14134

অস্বাস্থ্যকর অভ্যাসের ফলে আপনার বদহজম এবং এসিড প্রতিপ্রবাহ হয়। এই সমস্যাগুলি আপনার জন্য এক বড় চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে খাওয়ার পরে ঘুম এবং আলস্য সমস্যাকে গ্রহণ করা উচিৎ। এই রোগ থেকে পরিত্রাণ পেতে আপনাকে কিছু অনিষ্টজনক অভ্যাস এড়াতে হবে। বদহজম এবং এসিড প্রতিপ্রবাহের প্রধান কারণগুলি এবং তা থেকে কিভাবে প্রতিকার পাবেন তা সম্পর্কে নীচে আলোচনা করা হল।

১। দরকার পড়লে খাবার সময় আপনি অল্প জল পনা করতে পারেন, কিন্তু বেশি পরিমাণে জল বদহজম ও এসিডিটিকে ডেকে আনে। তাই খাবার খাওয়ার সঙ্গে জল পান এড়িয়ে চলুন।

হজম প্রক্রিয়ায় সাহায্য করার জন্য খাবার খাওয়ার সময় পেটে হাইড্রোক্লোরিক অ্যাসিড নিঃসৃত হয়। হাইড্রোক্লোরিক অ্যাসিড অতি অম্লীয়।

হাইড্রোক্লোরিক অ্যাসিড খাবারকে অতি ক্ষুদ্র ও শোষণযোগ্য পুষ্টিতে ভাগ করে। খাবারের সাথে জল পান করলে হাইড্রোক্লোরিক অ্যাসিডের ক্ষয় হয়, যা হজম প্রক্রিয়াকে হ্রাস করে।

বদহজম ও এসিডিটি রোধ করার জন্য এই সহজ পরামর্শটি অনুসরণ করুন। হজম প্রক্রিয়া নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য খাবার খাওয়ার এক ঘন্টা আগে বা পরে জল পান করুন।

২। ফ্রেঞ্চ ফ্রাই, পাস্তা, বার্গার, ভাত ইত্যাদি খাদ্য খাবার পর আমরা অলস এবং কুঁড়ে করে হয়ে উঠি। তাই অতিরিক্ত শ্বেতসার জাতিয় খাদ্যে এড়িয়ে চলুন।

দৈনন্দিন বা অতিরিক্ত পরিমাণে মাছ, মুরগির মাংস, পাঁঠার মাংস, ডিম খাওয়াতে বদহজম এবং এসিডিটি হতে পারে। তাই অতিরিক্ত প্রোটিন যুক্ত খাবার খাওয়ার পরিমাণ কমানো প্রয়োজন।

শ্বেতসার জাতিয় খাবার সহজেই শর্করাতে ভেঙে যায়, কিন্তু অতিরিক্ত প্রোটিন জাতিয় খাবার হজম করতে বেশি সময় লাগে। শ্বেতসার এবং প্রোটিন একসাথে পেটে মিশ্রিত হলে সামগ্র হজম প্রক্রিয়া বিলম্বিত হয়।

হজম দেরি হওয়ার ফলে শরীরে গ্যাস সমস্যার সৃষ্টি হয়। এই সমস্যার চমৎকার সমাধান হল শ্বেতসারের পরে প্রোটিন খাদ্য খাওয়া। এটা আরও ভালো হয় যদি আপনি শাকসবজির সাথে শ্বেতসার ও প্রোটিন খাদ্য খান।

৩। বরফ ঠান্ডা জল রক্তনালীর সংকোচন এবং ফ্যাটের দৃঢ়ীকরণ করে। তাই খাবার খাওয়ার সাথে সাথে ঠান্ডা জল কখনো পান করবেন না। এর ফলে হজম প্রক্রিয়া রোধ হবে।

আপনার শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করুন। খাবার আগে গরম জল বা সবুজ চা পান করলে এই সমস্যার প্রতিরোধ হয়। জাপানের মানুষরা সবসময় হজমের জন্য খাবার আগে গরম জল বা স্যুপ পান করেন।

সকলের সাথে এই সাধারণ স্বাস্থ্য সমস্যার কারণ ও প্রতিরোধের পরামর্শটি শেয়ার করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here