শ্রী কৃষ্ণের মতে স্নানের সময় ও পরে এই কাজগুলি করলেই হতে পারে বিপদ…

0
12478

স্নান করা হল প্রতিদিনের গুরুত্বপুর্ন কাজগুলির মধ্যে একটি। সুস্থ ভাবে বেঁচে থাকার জন্য স্নানের কোন বিকল্প নেই। অনেকেই সকাল বিকাল দুবার স্নান করেন। আর গরম কালে তো কোন কথাই নেই। দু থেকে তিনবার স্নান করে সবাই গরমকালে। অনেকে আবার গরম জলে স্নান করে। সে গরম জলেই স্নান করা হক বা ঠাণ্ডা জলে, প্রতিদিন স্নান করার আলাদাই উপকার।

প্রতিদিন সকাল বিকাল স্নান করলে নানা রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। ফলে মানুষের চোখে পড়ার মতো আয়ূ বাড়ে। আমরা হিন্দুরা ছোট থেকেই জেনে এসেছি অশুদ্ধ বস্ত্রে পূজো করতে নেই। সে ঘরের পুজোই হক বা মন্দিরের পুজো। সব সময় স্নান করে শুদ্ধ শরীরে, শুদ্ধ বস্ত্রে, শুদ্ধ মনে ভগবাকে পুজো করা হয়।

সকালের স্নান শরীরের সঙ্গে মনের শুদ্ধতাও আনে। সারাদিনের জন্য শরীরে এনার্জি জোগায়। মাথা ঠাণ্ডা রাখতে সাহায্য করে। কিন্তু স্নান করার সময় এবং স্নান করার পর এমন কিছু কাজ আছে যা করতে নেই। আসুন তাহলে জেনে নি স্নান করার সময়ের সেই কাজগুলি কি কি?

১। শাস্ত্রে বলা হয়েছে বিবস্ত্র হয়ে স্নান করা একদমই উচিত নয়। এমন কথা বলার কারণ হল স্নান করার সময় কীট, পতঙ্গ, নানা পশু পাখিরা ঐ অবস্থায় দেখতে পায়। এর ফলে জলরূপী বরুন দেবতা ক্রদ্ধ হয়। এতে শারীরিক ও মানসিক স্থিতি নষ্ট হয়। আর্থিক অবস্থাও খারাপ হয়।

২। শাস্ত্রে আরো বলা হয়েছে যে স্নান করার সময় মূত্র ত্যাগ করতে নেই। এতে শারীরিক অবস্থা খারাপ হয়। ৩। জীবনে কখনও একবার হলেও গঙ্গাস্নান বা গঙ্গাসাগরে স্নান করা উচিত। এতে মনের পাপ ধুয়ে যায়। পুণ্য অর্জন হয়।

৪। জুতো পড়ে স্নান করা একদম ঠিক নয়। এর ফলে আর্থিক ক্ষতি হতে পারে। ৫। যাদের রাতে ঘুম না আসার সমস্যা আছে তারা শোবার আগে স্নান করে নিলে ভালো ঘুম আসে। এবার জানুন স্নানের পড়ে কি কি করবেন না ঃ

১। শাস্ত্রে বলা হয়েছে দাহ করার পর অবশ্যই স্নান করা দরকার। মৃত দেহ থেকে নির্গত জীবাণু যাতে মানব শরীরে বাসা বাঁধতে না পারে তার জন্যই এই নিয়ম। ২। চুল কাটার পর স্নান করা দরকার। কারন কাটা চুল গায়ে লেগে থাকলে তা কোন ভাবে পেটে গেলে শরীর অসুস্থ হতে পারে।

৩। শাস্ত্রে বলা হয়েছে স্নানের পর ভিজে জামাকাপড় রেখে দিতে নেই। এর ফলে পরিবারের ওপর রাহুর দৃষ্টি পড়ে। ৪। শারীরিক মিলনের পর স্নান করা উচিত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here