চিড়িয়াখানাতে গাধাকে রং দিয়ে করা হল জেব্রা…

0
1216

মিসরের কায়রোতে এক চিড়িয়াখানায় গাধার গায়ে রং করে জেব্রা বলে দেখানো হচ্ছে। চিড়িয়াখানার দর্শকদের বোকা বানানোর চেষ্টা করা হয়েছে বলে চিড়িয়াখানার কর্তৃপক্ষের উপর অভিযোগ উঠেছে। কিন্তু ব্যাপারটি পুরোপুরি অস্বীকার করেছেন তারা। জানা গেছে সেখানে এক মিশরীয় তরুন সম্প্রদায় কায়রোর ইন্টারন্যাশানাল গার্ডেন সংযুক্ত নতুন একটি চিড়িয়াখানা পরিদর্শন করার সময় অদ্ভুত একটি প্রানীকে দেখেন।

সেই প্রানীটাই নাকি জেব্রা। সেই ছেলেটির বেশ কয়েকটি ব্যাপার দেখে মনে সন্দেহ জাগে। যেগুলিকে জেব্রা বলে সেখানে রাখা হয়েছে সেগুলির মুখ থেকে কালো রং ঝরে পড়ছে। আর স্বাভাবিক ভাবে জেব্রার কান ছোট হয়। কিন্তু সেই জেব্রা গুলোর কান বেশ বড়।

সেই বিষয়টি চোখে পড়তে সে দেখায় তার বাকি বন্ধুদের। তখন তারাও ভালো করে লক্ষ করে জেব্রাগুলিকে। আর তারাও ভালো করে দেখে বুঝতে পারে সেটা কোন জেব্রা নয়, সেটা আসলে গাধা। এই বিষয়টি তার চোখে পড়তেই সে সঙ্গে সঙ্গে সেই চিড়িয়াখানায় রাখা জেব্রা গুলির ছবি ক্যামেরা বন্দী করে।

আর সেই ছবি নিয়ে পোষ্ট করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। তারপরেই ভাইরাল হয়ে যায় সেই ছবি। সে তার পোষ্টটির নিচে লেখে দেশে নির্বুদ্ধিতা এমন পর্যায় পৌঁছে গেছে যে একটি গাধাকে রং মাখিয়ে জেব্রা বানানোর চেষ্টা করা হয়েছে।

সেই পোষ্ট চোখে পড়ে চিড়িয়াখানার কর্মীদেরও। তারা এই পোষ্ট দেখার পর চিড়িয়াখানার পরিচালককে খবর দেয়। এই পোষ্ট চারিদিকে ছড়িয়ে পড়ায় সেই চিড়িয়াখানার কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে। তাদের কাছে উচ্চপদস্থ কর্মীদের থেকে ফোন আসে যে তারা এমন একটি কাজ কিকরে করলেন?

এমন আপত্তিকর অভিযোগ ওঠার পর চিড়িয়াখানার পরিচালকের কাছে এই বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করেন। তিনি বলেন সেগুলি সত্যিকারের জেব্রা, মোটেই রং করা গাধা নয়। চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ বলেন যে তারা তাদের চিড়িয়াখানার সব প্রানীকে খুব যত্নের সঙ্গে দেখাশোনা করেন।

তাদের বলা কথা কতটা সত্যি আর কতটা মিথ্যা তা খতিয়ে দেখা হবে বলে জানা গেছে। যতদিন না এই বিষয়টি নিয়ে উচ্চ পদস্থ ব্যাক্তিরা কোন সিদ্দান্ত নিচ্ছেন ততদিন চিড়িয়াখানা বন্ধ রাখা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here