বয়ফ্রেন্ডের সাথে পার্কে ঘুরতে গিয়ে এই অশালীন কাজ করে শ্রীঘরে যুবক-যুবতি…

0
17437

পার্ক সাধারণত বাচ্ছাদের খেলার জায়গা বলেই আমরা জানি। কিছুদিন আগে পর্যন্ত সেটাই ছিল। কিন্তু এখন পার্কে বাচ্ছাদের চেয়ে বড়রাই বেশি যায়। বড় বলতে বর্তমানে কাপলদের ভিড় বেশি হয় পার্ক গুলোতে। আগে পার্কে বাচ্ছাদের বাবা মা ঘুরতে নিয়ে যেত, কিন্তু এখন সেখানে এমন কাজকর্ম হয় যে বাচ্ছাদের সেখানে নিয়ে যাওয়া দুষ্কর হয়ে উঠেছে।

কিছু কিছু পার্ক এমন আছে যেখানে প্রকাশ্যে চলে চুম্বন ও নানা রকম ঘনিষ্ঠ কাজ। কিন্তু সেটা খুব নির্দিষ্ট কিছু পার্কে। বাকি সব পার্কে থাকে কড়া নজরদারি। তাই কোন সুবিধা করে উঠতে পারেনা কাপলরা। কিন্তু কড়া নজরদারি থাকা সত্ত্বেও কোচবিহারের এক পার্কে ঘটে গেলো এক বাজে ঘটনা।

এক কাপল সেখানে এমন কান্ড ঘটালো যে তাদের স্থান হল শ্রীঘরে। পার্ক কর্তৃপক্ষের কথা অনুযায়ী তারা বিকাল পাঁচটা নাগাদ পার্কে আসে। তারপর একটি গাছের তলায় বসে তারা সময় কাটাতে থাকে। সন্ধ্যা যত বাড়তে থাকে তাদের ঘনিষ্ঠটা তত বাড়তে থাকে।

দুজন দুজনের খুব কাছে আস্তে শুরু করে। ৬ঃ৩০ টা যখন বাজে তখন দুজন গার্ড পার্ক খালি করার অন্য যায়, তখন তাদের চোখে পড়ে ঐ দুজন যুবক যুবতি যৌ-ন কর্মে লিপ্ত হয়েছে। গার্ডের চোখে পড়ে যেতে তারা নিজেদের সামলায়। মেয়েটি তার পোশাক ঠিক করে নেয়।

তাদের এই ঘটনাটি পার্ক কর্তৃপক্ষকে জানানো হলে পার্ক কর্তৃপক্ষ থানায় খবর দেয়। তারপর সেই পার্কে পুলিশ এসে তাদের থানায় নিয়ে যায়। এখন পর্যন্ত তাদের নাম গোপন রেখেছে পুলিশ। পুলিশ তাদের দুজনের বাড়িতে খবর দেয় এবং তাদের বাড়ির লোকেদের কাছে মোটা অঙ্কের টাকা জরিমানা করে।

সেই টাকা থানায় জমা করা হলে তাদের মুক্তি দেওয়া হয়। এই ধরনের ঘটনা খুব কম শোনা যায়। বর্তমান সমাজে যৌ-নতা বেশি প্রাধান্য পেয়েছে। তাই কেউ যৌ-নমিলন কালে দেখেনা তারা কোথায় আছে। যৌ-ন মিলন নারী পুরুষের একান্ত ব্যাক্তিগত ব্যাপার।

কিন্তু এখন তা আর ব্যাক্তিগত থাকছে না। কিছু যুবক যুবতি জনসমক্ষে যৌ-নতা কে এনে ফেলেছে। দেশের আইন কিছু করতে পারছেনা এই ধরনের অনাচার আটকাতে। নিজেরা যদি সচেতন না হওয়া যায় তাহলে কোন আইনের পক্ষে কিছু করা সম্ভব নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here