জানেন কতদিন পর পর শারীরিক মিলন করা উচিৎ ? বিজ্ঞান কি বলে এই বিষয়ে ?

0
15630

প্রাপ্তবয়স্ক যেকোন ছেলে ও মেয়ের যেকোন সময় সহবাসের ইচ্ছা জাগতে পারে। এটা আজকালকার দিনে খুবই কমন একটা ব্যাপার। সেটা দিনের সময় হোক বা রাতের সময়। কিন্তু এই ক্ষেত্রে বিজ্ঞানের ভাষা যেটা বলে সেটা আমার আপনার সকলেরই জেনে রাখা উচিৎ। কারন না জেনে না বুঝে এগানো মানেই যখন তখন আপনার জীবনে আসতে পারে ঘোর বিপদ।

সব মানুষেরই তাদের বৈবাহিক জীবন নিয়ে থাকে কিছু আশা কিছু আকাঙ্ক্ষা। মন চায় যে তাদের বৈবাহিক জীবন নিয়ে আসবে সুখের পাহাড়। তাই এসব বিষয়ে জানা না থাকলে পরবর্তী কালে আপনার জীবনেই তৈরি হতে পারে বিভিন্ন সমস্যা।

একটি সুস্থ শারিরিক মিলনের জন্য স্বামী ও স্ত্রী দুজনকেই সুস্থ বা ফিট থাকতে হয়। ফিট থাকলে তারা অনায়েশেই প্রতিদিন সুস্থভাবে সহবাস করতে পারেন। কিন্তু দুজনের মধ্যে একজনের যদি কোন শারিরিক সমস্যা থাকে বা যদি সে আনফিট থাকেন, সেটার কারনে হতে পারে বিভিন্ন শারীরিক ক্ষতি। এফেক্ট পড়তে পারে আপনাদের বাচ্চার ওপরেও। তাই যেকোন দম্পতির ফিট থাকাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ।

এবার এই ব্যাপারে বিজ্ঞান যেটা বলে সেটা হল যেকোন ২০-৩০ বছর বয়সী কাপেলদের সপ্তাহে ২ থেকে ৩ বার মিলন করা উচিৎ। আর যাদের বয়স ৩০-৪০ তাদের সপ্তাহে ২ বার মিলিত হওয়া উচিৎ। এবার বিভিন্ন লোক এই বিষয়ে বিভিন্ন মত দেয়ে।

সত্যি বলতে মিলিত হওয়ার কোন নিদিষ্ট দিন কাল খন বা কোন সময় হয়না। মিলন যেকোন সময় করা যেতে পারে সেটা দিন হোক বা রাত।

যাদের বয়স ৪০-৫০ বছর তাদের সপ্তাহে ১ বার করে সহবাস করা উচিৎ। আর যাদের বয়স ৫০-৬০ হবে তাদের মাসে ১ বার বা ১৫ দিন অন্তর অন্তর ১ বার মিলিত হওয়া উচিৎ। তাতে আপনার মনও ভালো থাকবে আর শরীরও সব সময় সতেজ থাকবে। কোন রকমের দুর্বলতা থাকবে না।

এটা বিজ্ঞান বলে। আবার যাদের সদ্য বিবাহ করেন তাদের দিনে ২-৩ বার মিলন হয়ে যায়। কিন্তু সময় ও পরিস্থিতির চাপে তাদের মনের মধ্যে এই ইচ্ছেটি আসতে আসতে কমে যেতে থাকে।

কিন্তু বিজ্ঞান এটাও বলে যে সহবাস তখনই করা উচিৎ যখন দুজনেরই মত থাকবে। দুজনের মধ্যে একজনের যদি ইচ্ছে না থাকে সেই ক্ষেত্রে সহবাস না করাই ভালো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here