আমাদের কোন কোন ভুলের কারনে হিজড়া সন্তান জন্ম হয় জানেন ? জেনে নিন ও সাবধান থাকুন…

0
4196

একটি সুস্থ স্বাভাবিক ছেলে বা মেয়ে যেভাবে বাঁচে ঠিক সেই অধিকারটা রয়েছে হিজড়া অথ্যবা কিন্নার দেরও। তাই সুপ্রিম কোর্ট লিঙ্গের মর্যাদা দিয়ে তাদের এক নতুন পরিচয় দিয়েছে যাতে তারাও আরো ৫টা মানুষের মতো মাথা তুলে বাঁচতে পারে। কিন্তু আজকের তারিখেও আমাদের সমাজ তাদের মেনে নিতে পারে না। মানুষের মনে এই প্রশ্নটা ঘুরপাক খেতেই থাকে যে হিজড়া কেন জন্মায় ? কি কি কারণে জন্মায় ?

হিজড়া আসলে কারা? কি তাদের পরিচয়? কীভাবে পৃথিবীতে আসে তারা? এরাম অনেক প্রশ্নই ঘুরপাক খেতে থাকে আপনার আমার সবার মনে। ট্রান্সজেন্ডার বা হিজড়া যাদেরকে আমরা প্রথম ও দ্বিতীয় লিঙ্গ থেকে বহিষ্কার করে তৃতীয় লিঙ্গতে সাধারণত ফেলে থাকি, দাক্তারের মতে তাদের শরীরের মধ্যে স্ত্রি ও পুরুষ উপয় লিঙ্গেরই প্রভাব থাকে এবং তাদের জন্মগ্রহনের কারণ হল আমাদের দ্বারা করা কিছু ভুল।

তাদের শারীরিক কিছু গঠনগত প্রতিবন্দকতার কারনে আমাদের বর্তমান সমাজ তাদেরকে স্পর্শ করতে ভয় পায়। তাদের কে অচ্যুত ও মনে করে থাকে।

ডাক্তারদের মতে একটি শিশুর লিঙ্গ নিধারন হতে সময় লাগে প্রায় ৩ মাস মতো। এরাম একটি গুরুত্বপূর্ণ সময় যদি মায়ের দিক থেকে কোন রকমের গাফিলতি হয় তাহলে হিজড়া সন্তান জন্মানোর সম্ভবনা হয়ে যায় প্রবল।

বিভিন্ন রখমের অসাবধানতার কারণে হতে পারে এরাম ফলাফল। তার মধ্যে কিছু প্রধান কারণগুলি হল জোড়ে পড়ে যাওয়া, বিষাক্ত খাদ্য খাওয়া, দুর্ঘটনা বা কোন রোগে আক্রন্ত হওয়া, গর্ভপাতের ওষুধ নেওয়া, জেনেটিক ডিসঅর্ডার, আর বেশ কিছু কারণ।

বিজ্ঞানের দৃষ্টি দিয়ে বলতে চাইলে বলা যেতে পারে যে, মায়ের শরীরে থাকে xx ক্রমজম আর বাবার শরীরে থাকে xy ক্রমজম। মা ও বাবার x ক্রমজম মিলিত হলে কন্যা সন্তান জন্মায়। আর মায়ের x ও বাবার y ক্রমজম মিলিত হলে পুত্র সন্তান জন্মায়।

কিন্তু ক্রমজম গুলি ঠিক ভাবে মিলিত না হলে তখনই ঘটে বিপত্তি। মানে xxy বা xyy এরাম একটা সিচুএসন দাঁড়ালে জন্মগ্রহন করে হিজড়া। তবে এই কথাটিও ঠিক যে ঠিক সময় ঠিক রকম চিকিৎসা হলে তাদের ঠিক হয়ে ওঠাটাও সম্ভব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here