অ্যানড্রয়েড ফোন ব্যবহার করলে সতর্ক হন। আপনার ফোনেই রয়েছে হয়তো অনেক ভয়ানক অ্যাপ…

0
2681

বর্তমানে অ্যানড্রয়েড ফোন ঘরে ঘরে। এই ফোনের আরেক নাম হল স্মার্ট ফোন। আমরা অনেকেই অসতর্ক ভাবে এটিকে ব্যাবহার করে থাকি। নতুন একটি গবেষণায় উঠে এসেছে যে অ্যানড্রয়েড ব্যবহারকারীদের প্রি-ইনস্টল অ্যাপগুলো দিয়ে ব্যক্তিগত তথ্য সংগ্রহে নিয়ন্ত্রণ রাখা হয় না।

স্পেনের একটি একাডেমিক গ্রুপের নেতৃত্বে স্বাধীনভাবে চালানো এক গবেষণায় দেখা গেছে নতুন অ্যানড্রয়েড মোবাইল ডিভাইসগুলোতে প্রি-ইনস্টল করা প্রোগ্রামগুলোয় ব্যক্তিগত তথ্য সংগ্রহ করা যেতে পারে। যা একজন সাধারন মানুশের অধিকারকে বিঘ্নিত করতে পারে।

প্রায় ২৭৪৮ জন অ্যান্ড্রয়েড ফোন ব্যাবহারকারীর ফোন গুলিতে প্রি-ইনস্টল করা অ্যাপ্লিকেশনগুলো তদন্ত করেছে পাবলিক ইউনিভার্সিটি কার্লোস-৩ ডি মাদ্রিদ, আইএমডিএএ নেটওয়ার্কস ইনস্টিটিউট এবং স্টোন ব্রুক ইউনিভার্সিটি। তাদের তদন্তে বেরিয়ে এসেছে ১৩০টি দেশে ২১৪ জন বিক্রেতারা এসব অ্যানড্রয়েড ফোনে ৭৪২টি অন্য ডিভাইস প্রবেশ করেছে।

অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসগুলোতে প্রি-ইনস্টল অ্যাপগুলোতে আরও বেশি নজরদারি বাড়াতে হবে কিনা ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) সাধারণ তথ্য সুরক্ষা রেগুলেশন আইনে তা দেখানো হয়নি।

যদিও অ্যালফাবেট ইন্স গুগলের নিজেদের অ্যানড্রয়েড, এটার ডিভাইস প্রস্তুতকারকদের অপারেটিং সিস্টেমগুলোকে প্রকৃতিগতভাবে ওপেন সোর্সের মাধ্যমে কাস্টমাইজ করতে সক্ষম থাকে। ব্যবহারকারীদের প্রদান করার আগে অপারেটিং সিস্টেমের সঙ্গে অন্যান্য অ্যাপ্লিকেশন প্যাকেজ যুক্ত করে দেয় তারা।

গবেষণার মাধ্যমে জানা গেছে যে এই প্রি-ইন্সটল অ্যাপগুলো ব্যাবহারকারিদের কাছে অনেক বিপদ ডেকে আনতে পারে। সমস্যা হল এসব প্রি-ইনস্টল অ্যাপগুলো আনইনস্টল করা যায় না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here